ডাক অধিদপ্তর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৯ জুন ২০২১

ডাক অধিদপ্তরের অর্জন

ডাক অধিদপ্তরের অর্জন

 

 

জানুয়ারি ২০০৯ হতে সেপ্টেম্বর ২০১৮ পর্যন্ত সাফল্যের অগ্রযাত্রা: 

  • মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ২৬ মার্চ ২০১০ তারিখে ইএমটিএস ও পোস্টাল ক্যাশ কার্ড সার্ভিস দু’টির শুভ উদ্বোধন করেন।
  • বর্তমানে ৮৫০০টি ডাকঘরে ইএমটিএস ও পোস্টাল ক্যাশ কার্ড সার্ভিস চালু করা হয়েছে।
  • ২০১২ সালে সোনালী ব্যাংক লিমিটেড এবং পোস্ট অফিস কো-ব্রান্ডেড এটিএম বুথ এর কার্যক্রম শুরু হয় । বর্তমানে ঢাকা শহরে এটিএম বুথের সংখ্যা ২০টি।
  • ডাক সার্ভিস উন্নয়নের পদক্ষেপ হিসেবে “ডাক পরিবহন ব্যবস্থা শক্তিশালীকরণ” প্রকল্পের আওতায় মোট ১১৮টি মেইল গাড়ি ক্রয় করা হয়েছে।
  • “বাংলাদেশের প্রেক্ষিতে পরিকল্পনা (২০১০-২০২১): রুপকল্প ২০২১ বাস্তবে রুপায়ন” এ ডাক সেবা উন্নয়নে ৮৫০০টি ডাকঘরকে পোস্ট ই-সেন্টারে রুপান্তরিত হয়েছে।
  • “ডাক অধিদপ্তরের সদর দপ্তর নির্মাণ”
  • “তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর গ্রামীণ ডাকঘর নির্মাণ” প্রকল্পের আওতায় সর্বমোট ১৮৬৩টি ডাকঘরকে তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর গ্রামীণ ডাকঘরে রুপান্তর করা হয়েছে। এর মধ্যে ৫৯০টি ডাকঘরের ভবন নতুন করে নির্মাণ এবং ১২৭৩টি ডাকঘরের মেরামত সম্পন্ন হয়েছে।
  • “ঢাকা শহরে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য আবাসিক ভবন নির্মাণ” প্রকল্পের কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে।
  • দেশের ১৪টি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সংবলিত মেইল প্রসেসিং ও লজিস্টিক সার্ভিস সেন্টার নির্মাণ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
  • দেশের বিভাগীয় শহরসহ ৩২টি জেলা ও ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় মোঠ ৩৮টি মডেল প্রধান ডাকঘর ভবন নির্মাণ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
  • অটোমেশন প্রকল্পের আওতায় ৭১টি প্রধান ডাকঘরে সঞ্চয় ব্যাংকের দৈনন্দিন লেনদেন ডিজিটাল পদ্ধতিতে পরিচালিত হচ্ছে।
  • ডাক জীবন বিমার প্রিমিয়াম গ্রহণ অনলাইনে সম্পন্ন করা হচ্ছে।
  • ৩ জুলাই ২০১৮ খ্রি: হতে জেলা সদরে অবস্থিত সকল প্রধান ডাকঘরে স্পিড পোস্ট সেবা চালু করা হচ্ছে।
  • ৪৫০টি ডাকঘরে ই-কমার্স সেবা চালু করা হয়েছে 

Share with :

Facebook Facebook